• শিরোনাম

    ওয়ার্ল্ড সুন্নি মুভমেন্ট, ইউরোপ আয়োজিত শানে রেসালাত সংগীত প্রতিযোগিতার ফলাফল ঘোষণা

    ডেস্ক | সোমবার, ০৩ আগস্ট ২০২০ | পড়া হয়েছে 178 বার

    ওয়ার্ল্ড সুন্নি মুভমেন্ট, ইউরোপ আয়োজিত শানে রেসালাত সংগীত প্রতিযোগিতার ফলাফল ঘোষণা

    শিশু কিশোরদের ধর্মীয় মুল্যবোধে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ওয়ার্ল্ড সুন্নি মুভমেন্ট, ইউরোপ কর্তৃক পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে ২ সপ্তাহ ব্যপী ক্বিরাত ও শানে রেসালাত সংগীত প্রতিযোগিতা করা হয়েছে।

    এই প্রতিযোগিতায় যুক্তরাজ্য, জার্মানি, ফ্রান্স ইতালি, স্পেইন, পর্তুগাল সহ ইউরোপের ভিবিন্ন দেশের প্রতিযোগীরা অংশগ্রহণ করেছে। গত ৩১ জুলাই ২০২০ ইউরোপ সময় বিকাল ৬ টায় ওয়ার্ল্ড সুন্নি মুভমেন্ট, ইউরোপের ফেইজবুক পেইজে জুম মিটিয়ের মাধ্যমে প্রতিযোগিতার ফলাফল ঘোষনা করা হয়।

    ফলাফল ঘোষণা অনুষ্ঠানে শিশুদের জন্য অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য দেন বুয়েট (বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অফ ইঞ্জিনিয়ারিং) থেকে পাশ করা প্রকৌশলী ডঃ নাজমুল হুদা যিনি বর্তমানে লন্ডনের ব্রুনেল ইউনিভার্সিটিতে সিনিয়র অধ্যাপক হিসেবে অধ্যাপনা করছেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ল্ড সুন্নি মুভমেন্ট, ইউরোপের সভাপতি ডঃ আল্লামা আধ্যাপক প্রফেসর কাউসার আমিন।

    বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন বিশ্ব সুন্নি আন্দোলন ও বিশ্ব ইনসানিয়ত বিপ্লবের মহা সচিব আল্লামা শেখ রায়হান রাহবার। প্রতিযোগিতায় ক্বিরাত ক্যাটাগরিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও যৌথভাবে তৃতীয় স্থান অধিকার করেছেন যথাক্রমে মাহফুজা সারাহ আলম, আফিয়া কানজান রুকবা ও মুশাদ রহমান এবং কাফিয়ান আলভি রুবাব এবং শানে রেসালাত সংগীত ক্যাটাগরিতে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকার করেছেন যথাক্রমে নুসাইবা আহমেদ, উজাঈর মায়াজ ও তাহান মানিক। অনুষ্ঠানে ওয়ার্ল্ড সুন্নি মুভমেন্ট, ইউরোপ প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারীদের পাশাপাশি অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিযোগীদের সনদপত্র ও পুরষ্কার প্রত্যেকের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেবার ঘোষণা দেন।

    এই প্রতিযোগিতায় যারা বিচারকার্যের মত গুরুদায়িত্ব পালন করেছেন তারা প্রত্যেকেই অত্যন্ত মেধাবী গুনীজন। যাদের তত্ত্বাবধানে গড়ে উঠেছে অসংখ্য মেধাবী শিক্ষার্থী, যার ধারাবাহিকতা এখনো অব্যাহত আছে। উনারা প্রত্যেকেই ইসলামের প্রকৃত ও পূর্ণাংগ দিশা পুনরুজ্জীবনকারী, বস্তুর উর্ধে মানবসত্তার প্রবক্তা, সত্য ও মানবতার মুক্তির ইমাম সৈয়দ আল্লামা ইমাম হায়াতের দিক নির্দেশনায় বাংলাদেশের সীমানা পেরিয়ে সমগ্র বিশ্বে উনাদের মেধাশক্তি দিয়ে দ্বীন মিল্লাত ও মানবতার শিক্ষকরুপে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে যাচ্ছেন।

    প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন বিশিষ্ট ইসলামী গবেষক ও চিন্তাবিদ ক্বারী আল্লামা ইলিয়াস শাহ, বিশিষ্ট ইসলামী গবেষক ও চিন্তাবিদ, অসংখ্য ইসলামী সংগীতের রচয়িতা ও সুরকার, আল্লামা রেজাউল মোস্তফা কায়সার, হাফেজ মাওলানা ক্বারী খতিব নুরুল্লাহ ক্বাদেরি এবং আহলে সুন্নাত স্কলার ফেডারেশন-এর রিসার্চার খতিব মাওলানা শওকাত মাহমুদ শাহিন।
    সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল উনারা প্রত্যেকেই এমন এক মহান প্রবীণ বুজুর্গের ছাত্রবৃন্দ যিনি একাধারে বিশ্ববরেণ্য আলেমে দ্বীন, ওলীয়ে রাব্বানী, শায়খুল হাদিস, ইমামে আহলে সুন্নাত, মিশর আল আজহার ইউনিভার্সিটির জাস্টিস বোর্ডের অন্যতম সদস্য, ইসলামী গবেষণায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় পদক ও সম্মাননায় ভূষিত, বাংলাদেশে একমাত্র সরাসরি বাংলায় পবিত্র কোরআন শরীফের তাফসীরকারক তাফসিরে মাশাহেদুল ঈমানের প্রণেতা, পবিত্র বোখারী শরীফ তাফহীমুল বোখারীর ব্যাখ্যাকার সৈয়দ আল্লামা হাফেজ ক্বারী হজরত সাইফুর রহমান নিজামী শাহ, আমাদের বিচারকবৃন্দের প্রত্যেকেই ১০৫ বছরের এই মহান প্রবীণ ওস্তাজুল ওলামার ছাত্রবৃন্দ।

    বাংলাদেশ সময়: ১:৪০ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ০৩ আগস্ট ২০২০

    eurobarta24.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ